ওয়েভ ডেভেলপার ক্যারিয়ার গড়তে চান?

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট

কোর্সের মেয়াদ

৩.৫ মাস

লেকচার

৩৬+

প্রজেক্ট

৫+

বিশ্ব জুড়ে মোবাইলের চাহিদা বৃদ্ধির সাথে সাথে সমান তালে বাড়ছে অ্যাপের গুরুত্ব। সেই সাথে Android App Development এর কাজও বেড়েছে বহুগণ। আপনি কি নতুন কোন অ্যাপ বানাতে চান? তাহলে আর দেরি কেনো! দক্ষ মেন্টর আর আপডেটেড সফটওয়্যার দিয়ে গড়ে নিন আপনার Android app development ক্যারিয়ার।

কোর্স ওভারভিউ

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট হল মোবাইল ডিভাইসে ব্যবহার করার জন্য এপ্লিকেশন তৈরির প্রক্রিয়া। নতুন যুগে চাহিদা সম্পন্ন যে সকল ক্যারিয়ার আছে তার মধ্যে তালিকার শীর্ষে রয়েছে Android App Development. এজন্যই আমাদের কোর্স এমনভাবে সাজানো হয়েছে, যাতে একেবারে গোড়া থেকে আপনি আমাদের সাথে অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে পারেন। এখানে আপনি প্রাথমিক ল্যাংগুয়েজ থেকে প্যাকেজ আর কম্পোনেন্ট সম্পর্কে ভালো ধারণা পাবেন। তাছাড়াও প্রজেক্ট ভিত্তিক Android App Development course -টি শেষ করার আগেই শিক্ষার্থীদের একটি ভালো পোর্টফোলিও তৈরি হয়ে যাবে। তাই আপনি দ্রুত ক্যারিয়ারের ভালো শুরু করতে পারবেন।

তাই আপনার যদি ইউনিক অ্যাপের আইডিয়া থাকে, তাহলে এই কোর্স করে সহজে একটি ভালো Android App তৈরি করতে পারবেন।

কোর্স কারিকুলাম

 

  • Java Programming
  • Core Collection Classes
  • Exception Handling
  • Content Providers
  • Language Fundamentals
  • Packages
  • Android Components
  • Multimedia & Deployment

যেসব সফটওয়্যার শেখানো হয়

 

  • Android Studio
  • Flutter

আপনাদের সাধারণ প্রশ্নোত্তর

কোর্সটি কাদের জন্য?

আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে যারা শিখছে তাদের জন্য আমরা বলে থাকি যে, কেউ যদি SSC পাস হয়ে থাকেন এবং কম্পিউটার অন-অফ করা বোঝে, মাউস ধরতে পারে, মাউস এর লেফট-ক্লিক, রাইট-ক্লিক কি জিনিস তা বোঝে এবং অন্তত ফাইল এবং ফোল্ডার কি জিনিস এতটুকু বোঝে তাহলেই সে আমাদের ক্লাস করার জন্য উপযুক্ত। কোর্স এর বাকি বিষয়গুলো আমরাই শিখিয়ে দেই প্রশিক্ষণ চলাকালীন।

তার পরেও কেউ যদি চায় যে একেবারেই জানে না কিন্তু শেখার অনেক আগ্রহ আছে, তার জন্য আমরা কোর্স শুরুর পূর্বে এই সাধারন বিষয় গুলো শেখার জন্য ২-৩ দিন এর প্রাক্টিস সেশন এর সুযোগ দেই আলোচনা সাপেক্ষে।

এছাড়া এক একজন ব্যাক্তির জন্য এক একটি কোর্স ভালো। এটা নির্ভর করে ঐ ব্যাক্তির শিক্ষাজীবন ও তার নিজস্ব পছন্দের ওপর। এই বিষয়টা আমরা ফ্রি ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং এর সময় শিক্ষার্থীকে বিষদ আলোচনার মাধ্যমে বুঝিয়ে দেই। তখন তিনি নিজেই সিদ্ধান্ত নেন যে কোন কোর্সটি করা তার জন্য ভালো হবে।

কোর্সটি করার পর সফলতার সম্ভবনা কতটুকু?

আমাদের প্রতিটি ব্যাচে ১০-১৪ জন শিক্ষার্থী থাকেন। এমন অনেক সময় হয়েছে যে কোর্স চলাকালীনই আমাদের শিক্ষার্থীরা অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে কাজ পাচ্ছেন আমাদের গাইডলাইন ফলো করে। সেই একই ব্যাচের অন্যরা আবার কাজ পাচ্ছেন না সেই একই সময়ে। এটা পর্যালোচনা করে আমরা দেখেছি যে এক্ষেত্রে সেই কাজ পাওয়া শিক্ষার্থী এবং বাকিদের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে মূলত কাজ করা ইচ্ছা, লেগে থাকার মানসিকতা ও গাইডলাইন হুবহু ফলো করার প্রবনতা। সেই কাজ পাওয়া শিক্ষার্থী দেখা গেছে দিনের ভেতর ৬-৮ ঘন্টা সময় দিয়েছে এই কাজের পেছনে যেখানে অন্যরা হয়তো ঘুরে ফিরে ২ ঘন্টাও সময় দেন নি। এগুলোই তার সাথে অন্যদের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। এই সব বিষয়গুলো সামনে রেখেই আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের বলি যে কাজ পাওয়াটা নির্ভর করে শিক্ষার্থীর ওপর।

কোর্সটি কিভাবে শুরু করতে পারি?

সাধারনত বিষয় ভিত্তিক আমাদের কোর্স গুলোর মেয়াদ ৩ থেকে ৩.৫ মাসের হয়ে থাকে। সপ্তাহে ৩ দিন ২ ঘন্টা করে ক্লাস পরিচালিত হয়। এছাড়া নির্দিষ্ট বিষয়ের সাথে আমাদের প্রতিটি কোর্স কারিকুলামের ভেতর ফ্রিল্যান্সিং এর ওপর পূর্ণ গাইডলাইন ও লাইফটাইম সাপোর্ট থাকে।

সাধারণত বিষয় ভিত্তিক প্রতিটি অফলাইন কোর্স ফি ১৯,৫০০ টাকা। এছাড়া বিভিন্ন সময় আমাদের ব্রাঞ্চভিত্তিক কোর্স ফি এর ওপর কিছু ছাড় থাকে যেগুলো ব্রাঞ্চ-অফিস থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়। এই কোর্স ফি দু’টি কিস্তিতে পরিশোধ করতে পারবেন। কোর্স শুরুর পূর্বে ভর্তির সময় ৫৫% ফি পরিশোধ করে ভর্তি নিশ্চিত করে পরবর্তীতে ক্লাস শুরুর ১ মাসের ভেতর বাকি ৪৫% টাকা পরিশোধের সুযোগ থাকে।

ভর্তির সময় নিম্নে বর্নিত ডকুমেন্ট গুলো নিয়ে আসতে হয়ঃ

১। ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
২। NID/জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি
৩। SSC বা HSC শিক্ষা সনদ/ মার্কশিটের ফটো কপি।
৪। ভর্তির জন্য প্রযোয্য ফি।

[showmodule id="185"]

ভর্তি চলছে!

অফলাইন (সরাসরি ইন্সটিটিউটে) বা অনলাইন (লাইভ ক্লাস)- যে কোন ব্যাচে সুবিধামতো সময় বেছে নিয়ে ভর্তি হতে পারেন এখনই।

কোর্স ফী (অফলাইন)
৳ ২৫,০০০ টাকা

Entroll Now

কোর্স ফী (অনলাইন)
৳ ৮,৫০০ টাকা

Entroll Now